বাংলায় পাইথন – ম্যাথ সিম্বলস

পাইথনে গানিতিক সমস্যা সমাধানের জন্য যে প্রতীক চিহ্নগুলো ব্যবহার করা হয় সেগুলো হল:

  • + প্লাস বা যোগ
  • – মাইনাস বা বিয়োগ
  • / স্ল্যাশ বা ভাগ
  • * এস্টেরিস্ক বা গুন
  • % পার্সেন্ট বা মডুলাস বা ভাগশেষ
  • < লেস দ্যান বা ক্ষুদ্রতর
  • > গ্রেটার দ্যান বা বৃহত্তর
  • <= লেস দ্যান অর ইকুয়াল অর্থাৎ ক্ষুদ্রতর অথবা সমান
  • >= গ্রেটার দ্যান অর ইকুয়াল অর্থাৎ বৃহত্তর অথবা সমান

ইংরেজী নাম গুলো উল্লেখ করলাম কারণ অন্য কোথাও পাইথন রিলেটেড কিছু পড়তে গেলে সেটা ইংরেজীতে হবে সেটাই স্বাভাবিক । তাই এই ইংরেজী নামগুলোই আমাদের শেখা উচিৎ ।

এবার উদাহরণসহ দেখা যাক এদের কোনটার কাজ কি:

যোগ থেকে আরম্ভ করে ভাগ : এগুলোর কাজ বোধহয় বলার অপেক্ষা রাখে না । আমরা কিছু উদাহরণ দেখব।

আপনারা এই কোডটি কোন পাইথন ফাইলে টাইপ করে (কখনোই কপি পেস্ট করবেন না প্লিজ) রান করে দেখুন । এবার পাইথনের ইন্টারএক্টিভ শেলে নিজের ইচ্ছামত কিছু যোগ বিয়োগ গুন ভাগ করে দেখুন পাইথন এর এই শেলটিকে আসলে ক্যালকুলেটর হিসেবে ব্যবহার করা যায় কিনা 🙂

আমি করলাম:

একটু লক্ষ্য করলে দেখবেন পাইথনও ক্যলকুলেশন করার সময় BODMAS এর প্যটার্ন ফলো করে । এটাকে অপারেটর প্রিসিডেন্সও বলা হয় ।

পার্সেন্ট বা মডুলাস (%): এটি দিয়ে আমরা ভাগশেষ বের করি । যেমন:

১৫ কে ৭ দিয়ে ভাগ করলে ভাগশেষ ১ থাকে, এটা কে না জানে, কিন্তু বলুন তো ১৫৭৯ কে ৩৭ দিয়ে ভাগ দিলে ভাগশেষ কত আসবে? নিজেই করে দেখুন না, অবশ্যই পাইথন ব্যবহার করে ।

বাকি প্রতীক গুলো (<, >, <=, >=): এগুলো দিয়ে আমরা দুটি সংখ্যা বা এক্সপ্রেশনের মানের তুলনা করতে পারি । যেমন:

অর্থাৎ আমরা যখন টাইপ করব 5 > 4, পাইথন আমাদেরকে জানিয়ে দিবে এটা সত্যি (সম্ভব) কিনা । যেমন: 5 > 4 এ আমরা পাব True কেননা ৪ অপেক্ষা ৫ বড় কিন্তু 5 > 10 এ পাব False কারণ ৫ কোনভাবেই ১০ এর চেয়ে বড় না ।

কিন্তু 5 >= 5 কেন True? কারণ ইকুয়াল সাইন থাকলে বোঝায় “সমান অথবা বৃহত্তর” । এখানে ৫ যেহেতু ৫ এর সমান সেহেতু এটি True ।

এভাবে নিজে নিজে কিছু সংখ্যা নিয়ে এই প্রতীকগুলো ব্যবহার করে দেখুন । আশাকরি আরো ভাল ধারণা পাবেন ।

এবার দেখা যাক জটিল এক্সপ্রেশন কিভাবে বিশ্লেষন করা সম্ভব:

এক্ষেত্রে ৩৫ থেকে ১৪ বাদ দিলে থাকছে ২১, অপরদিকে ১০০১ থেকে ৯৯৯ বাদ দিলে থাকছে ২ । ২১ অবশ্যই ২ অপেক্ষা বড়, তাই এক্সপ্রেশনের ভ্যালু হবে True.

এই জিনিসগুলো বার বার নিজে অনুশীলন করে নিন, আশা করি পাইথনে সাধারণ হিসাব নিকাশ খুব সহজেই করে নিতে পারবেন ।


2 Comments বাংলায় পাইথন – ম্যাথ সিম্বলস

  1. নাসিম

    যদিও এটা একটি সিম্বল নয়, বরং ফাংশন। তবুও একটু যোগ করি –

    divmod একটি খুবই উপকারী ফাংশন অঙ্কের জন্য। এটা ভাগফল ও ভাগশেষ একসাথেই দেয়। যেমন –

    >>>q, r = divmod(125, 3)
    >>> q, r
    (41, 2)

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *